সম্পাদকের মন্তব্য
Trending

সম্পাদকীয়

প্রিয়ক মিত্র

আগামীকাল। কীসের আগামীকাল? কার আগামীকাল? দেশ সমাজ সংসার? হরিদাস পাল বা গৌরী সেন? আগামীকাল ইউটোপিয়া অথবা ডিসটোপিয়া-কোথাও একটা নিয়ে গিয়ে ফেলবে আমাদের। সেই আগামীকাল নিয়েই তো যত চিন্তা আমাদের। ‘আমার সন্তান যেন থাকে দুধেভাতে’ -ঈশ্বরী পাটনি আগামীকালের কথা চিন্তা করেই এই আশ্বাস চান। আগামীকাল বাজেট, আগামীকাল যুদ্ধ। আজ যদি জঙ্গল সাফ করার দিন হয় তবে আগামীকাল নিশ্চিত বিপ্লব আসার দিন।
আলভিন এবং হেইডি টফলার নামক দুই ব্যক্তি ১৯৭০ সালে ‘ফিউচার শক’ বলে একটি বই লিখেছিলেন। যার মর্মার্থ ছিল অল্পসময়ের মধ্যে সমাজ রাজনীতি অর্থনীতির আমূল পরিবর্তন মানুষের আত্মারাম খাঁচাছাড়া করে দিতে পারে। ১৯৭২ সালে অ্যালেক্স গ্রসহফ এ বিষয়ে একটি তথ্যচিত্রও নামান, যাতে অরসন ওয়েলস কন্ঠস্বর দেন। কাজেই আগামীকাল নিয়ে দুশ্চিন্তা করার ফাঁকেই বুঝে নিতে হবে শক ছাড়া আগামীকাল কিছুই দিতে পারবে না।
কী ধরনের শক? দুরকমের শক সবথেকে কার্যকরী, একটি অবশ্যম্ভাবীভাবে ইলেকট্রিক শক, যেখানে কোনো ট্রিক চলে না। দ্বিতীয়টি হল কালচারাল শক! কালচার বড় গোলমেলে এলাকা! বাঙালির কালচারে ব্যোমকেশ থেকে বিশ্বকাপ সবই ঘাপটি মেরে বসে! বাঙালি আন্তর্জাতিক এবং ঘরকুনো , এ কথা সর্বজনবিদিত। কিন্তু গ্রেট বেঙ্গল সার্কাসের প্রোফেসর বোসের কথা কজন বাঙালি জানেন? মন্দার বোসের বহু আগে বিশ্বভ্রমণ করে বেরিয়েছিলেন যে বাঙালি , বাস্তবে। প্রমদারঞ্জন রায় , তখনকার শান স্টেট , এখনকার মায়ানমারের পাহাড়জঙ্গল থেকে কাবুলের প্রান্তর পর্যন্ত ঘুরে বেরিয়েছিলেন এই বাঙালি , তার উত্তরপুরুষ  অস্কার পেয়ে বিশ্বজয় করেছেন। বাঙালি ছেলে শঙ্কর আফ্রিকা ঘুরে আসে , বিভূতিভূষণ ঝাড়খন্ডের বাইরে বেরোন না। তাহলে শঙ্করের গোটা যাত্রাটাই কি একটা স্বপ্ন?
বদ্রিলার্ডের লব্জে এ শতক শূন্য শতক, সেই শূন্য শতকের বাঙালিকে তার আগামীকাল স্বপ্ন দেখাবে না ভয় দেখাবে জানি না! তবে আমবাঙালি শঙ্করের কাল্পনিক অভিযানের কথা জানে , তার কিছুটা উপন্যাসের দরুণ , কিছুটা টলিউডের আস্পর্ধার দরুণ ; কিন্তু প্রোফেসর বোস বা প্রমদারঞ্জন রায় কোথায় হারিয়ে গেলেন? বাঙালির কাছে এসব নাম স্মৃতিধার্য হল না কেন?
‘আগামীকাল’ কখনও অতীতের কারখানায় ঢুকে পড়বে , বাঙালির বিস্মরণকে লজ্জা দেবে। ‘আগামীকাল’ কখনও ভবিষ্যৎ খুঁড়ে এনে দোবেড়ের চ্যাং দেখাবে। কখন কোথায় কীভাবে বিস্ফোরণ ঘটবে তা রাষ্ট্রযন্ত্র না জানলেও বিগ ব্রাদার অবশ্যই জানে। বেন্থামের প্যান অপটিকন ফুকোর কাছে তাই হয়ে উঠেছিল সেই দৈত্য , দুর্গের প্রতিটা খোপ যার নজরবন্দী। ‘নার্কোস’ নামক ওয়েবসিরিজের শুরুতেই বলা হচ্ছে আমেরিকা তার বাসিন্দাদের শোবার ঘরের হাঁড়ির খবরও রাখে। ফেসবুকের ডেটা মাল্টিন্যাশনালের পকেটে ঢুকছে , আপনার আধারের তথ্যও রবে না গোপনে। কাজেই ভবিষ্যৎ নির্ধারিতই। কিন্তু ‘কখন কী ঘটে যায় কিচ্ছু বলা যায় না’! যেকোনো দিন তাই ‘আগামীকাল’ প্রাণে চমক লাগাবে , চোখে লাগাবে ঝিলমিল। প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায় কবিতায় বলেছিলেন , “শোনো…সাড়ে তিনহাজার বছর পর ব্যাংবাজি মারতে মারতে আমরা বেরিয়ে আসব!” ততদিন অবধি বিপ্লব মুলতুবি। আপাতত পুতিন , ইমরান খান , মোদী , প্রিয়ঙ্কা চোপড়া , মহাজোট , মব লিঞ্চিং , ফেক খবর , ফোটোশপ , কন্ডোম – যাবতীয় কেচ্ছাকেলেঙ্কারি সবকিছুর বিক্কিরি আছে। নজর রাখতে হবে , হরেকরকমবাজিওবারুদেরকারখানা মজুত থাকবে ‘আগামীকাল’-এর জন্য!
Tags
Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!
Close
Bitnami